লকডাউনে’র ধাক্কা সামলে বাড়ছে চাকরির হার, কোন কোন সেক্টর রয়েছে কর্মসংস্থানের শীর্ষে?

করোনাভাইরাস (Coronavirus) সারা বিশ্বের অর্থনীতিতেই যে বড়সড় এক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে, সে কথা বলার অপেক্ষা রাখে না। বিশ্ব জুড়ে এই অতিমারীর আবহে কাজ হারিয়েছেন অগুনতি মানুষ। যদি ভারতের ক্ষেত্রে এই হিসেবটি মাথায় রাখতে হয়, তা হলে দেখা যাবে যে সেই সংখ্যাটা ১০ মিলিয়ন! ক্ষুদ্র, মাঝারি, বৃহৎ- এই সব সেক্টর মিলিয়েই এই বিশাল সংখ্যক ভারতীয় কাজ হারিয়েছেন চলতি বছরে। মূলত লকডাউনের প্রভাবেই এমনটা হয়েছে।

বহু সংস্থা এক দিকে যেমন কর্মী ছাঁটাই করেছে, তেমনই অন্য দিকে বহু সংস্থা লোকসান টানতে না পেরে বন্ধও হয়ে গিয়েছে। পরিসংখ্যান মোতাবেকে ভ্রমণ, আতিথেয়তা শিল্প, ই-কমার্স এবং রিয়েল এস্টেট সেক্টরে চাকরির অবস্থা সব চেয়ে বেশি শোচনীয়! যদিও বছর শেষের মুখে পরিসংখ্যান সামান্য হলেও আশার আলো দেখাচ্ছে। জানাচ্ছে যে চলতি বছরের জুলাই মাস থেকে লকডাউন সংক্রান্ত নিয়মকানুন শিথিল হওয়ার পর থেকে ধীরে ধীরে দেশের বেশ কিছু সেক্টরে কর্মীনিয়োগের পরিমাণ বেড়েছে।

বিশেষ করে কর্মীনিয়োগ চলছে মার্কেটিং, সেলস, অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, অনলাইন-বোসড এডুকেশন সেক্টরে। তবে আইটি সেক্টরে আগে যেমন বহুল পরিমাণে কর্মীনিয়োগ করা হত, সেই প্রবণতা অনেকটাই কমে গিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। দেখে নেওয়া যাক এক এক করে কোন কোন সেক্টরে কর্মসংস্থানের হার বেড়েছে!

১. এডুকেশনাল সার্ভিস চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ২৭ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ৩৪ শতাংশ।

২. আইটি সেক্টর চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ২২ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ২৯ শতাংশ।

৩. হেল্থকেয়ার, ফার্মাসিউটিক্যাল সেক্টর চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ৩৩ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ৩৯ শতাংশ।

৪. ই-কমার্স, টেক স্টার্ট-আপ চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ২৬ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ৩১ শতাংশ।

৫. ফিনান্স চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ১৩ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ১৮ শতাংশ।

৬. ম্যানুফ্যাকচারিং, ইঞ্জিনিয়ারিং চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ৭ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ১১ শতাংশ।

৭. বিপিও (BPO) চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ১১ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ১৫ শতাংশ।

৮. টেলিকমিউনিকেশন চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ২০ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ২৪ শতাংশ। ৯. রিটেল (এসেনসিয়াল) চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ২০ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ২৩ শতাংশ। ১০. রিটেল (নন-এসেনসিয়াল) চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ৯ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ১২ শতাংশ।

১১. এগ্রিকালচার, অ্যাগ্রোকেমিক্যাল চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ২৫ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ২৭ শতাংশ। ১২. রিয়েল এস্টেট চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ১০ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ১২ শতাংশ। ১৩. মার্কেটিং, অ্যাডভারটাইজিং চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ১০ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে

১২ শতাংশ। ১৪. মিডিয়া, এন্টারটেনমেন্ট চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ১৫ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ১৬ শতাংশ। ১৫. ট্র্যাভেল, হসপিটালিটি চলতি বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীনিয়োগের হার ছিল ৫ শতাংশ; অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বেড়ে হয়েছে ৬ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here