জানা গেল বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচের নাম

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালনা পর্ষদের মিটিং শুরু হওয়ার কথা ছিল বিকাল ৩টায় কিন্তু সেই মিটিং শুরু হলো পৌনে ৫টার দিকে। ম্যারাথন মিটিং এখনও শেষ হয়নি। তবে মিটিং সূত্রে জানা গেছে,

বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ হিসেবে আলোচনায় উঠে এসেছে জেমি সিডন্সের নামই এবং তাকেই তামিম-মুশফিকদের প্রশিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া প্রায় চূড়ান্ত। বৈঠক শেষে হয়তো এই ঘোষণাই দেবেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। আপাতত মিটিং সূত্রে জানা গেছে, জেমি সিডন্সকেই নিয়োগ দিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

আরো পড়ুন যে পাঁচ প্রতিভাবান ক্রিকেটার শ্রীলঙ্কা সফরে দলে সুযোগ পেলেন না

কিছুদিন আগেই শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য ২০ সদস্যের ভারতীয় দল ঘোষিত হয়েছে। বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মার(Virat Kohli-Rohit Sharma) অনুপস্থিতিতে ভারতের ‘বি’ দলের নেতৃত্ব দেবেন শিখর ধাওয়ান(Shikhar Dhawan)। প্রত্যাশা মতোই দ্বীপরাষ্ট্রের সফরে ভারতীয় দলে বেশকিছু অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের প্রত্যাবর্তন ঘটার পাশাপাশি দেবদত্ত পাড়িক্কল(Devdutt Padikkal),

চেতন সাকারিয়ার(Chetan Sakariya) মতো নতুন পাঁচজন ক্রিকেটারের সামনে প্রথমবারের জন্য খুলে গিয়েছে জাতীয় দলের দরজা। তবে এমনও কয়েকজন প্রতিভাবান ক্রিকেটার আছেন যাঁদের হয়তো সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সের নিরিখে শ্রীলঙ্কা সফরের দলে জায়গা পাওয়া উচিত ছিল, কিন্তু তাঁরা ব্র্যাত্য রয়ে গেলেন। এমনই পাঁচ ক্রিকেটারের নাম একটু দেখে নেওয়া যাক।

• হর্ষল পটেল (Harshal Patel)
চতুর্দশ সংস্করণে আইপিএলে হর্ষলের পারফরম্যান্সের দিকে নজর রেখে তিনি শ্রীলঙ্কা সফরের দলে জায়গা করে নেবেন এমন আশা করা হয়েছিল। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি। আইপিএলের প্রথম পর্বের ৭ ম্যাচে ১৭টি উইকেট নিয়েছেন হর্ষল।

২০২১ আইপিএলের উইকেটশিকারির তালিকার শীর্ষে রয়েছেন তিনি। ২০২১ আইপিএলের প্রথম পর্বে ইনিংসে ৫ উইকেট একমাত্র হর্ষল নিয়েছেন। ব্যাট হাতেও বড় শট মারার ক্ষমতা রয়েছে তাঁর। ভাবা হয়েছিল শ্রীলঙ্কা সফরে হার্দিক পান্ডিয়ার যথার্থ বিকল্প হয়ে উঠবেন হর্ষল। কিন্তু দ্বীপরাষ্ট্রের সফরে তাঁকে দলেই রাখলেন না নির্বাচকরা।

• রাহুল তেওয়াটিয়া (Rahul Tewatia)
বছরের শুরুতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজের দলে জায়গা পেয়েছিলেন রাহুল তেওয়াটিয়া। কিন্তু শ্রীলঙ্কা সফরের দল থেকে বাদ পড়লেন তিনি। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজে রাহুল একটিও ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি। ভাবা হয়েছিল, শ্রীলঙ্কা সফরে নিজের প্রতিভা প্রদর্শন করার সুযোগ পাবেন তিনি।

কিন্তু তা হল না। ঘরোয়া ক্রিকেটে হরিয়ানার হয়ে খেলা এই প্রতিভাবান অল-রাউন্ডার এখনও পর্যন্ত টি-২০ ক্রিকেটে ৭৫টি ম্যাচ খেলে ৪৪টি উইকেট ও ১০৫১ রান করেছেন। চতুর্দশ আইপিএলের প্রথম পর্বে রাজস্থান রয়্যালসের জার্সি গায়ে খেলতে নেমে রাহুল ২টি উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে ৮৬ রান করেছেন।

• জয়দেব উনাদকট (Jaydev Unadkat)
কয়েক বছর আগেও আইপিএলে ভালো পারফর্ম করার পর ভাবা হচ্ছিল জাতীয় দলে এবার বাঁ-হাতি পেসারের ভূমিকা পালন করতে দেখা যাবে জয়দেব উনাদকটকেই। কয়েকটি ম্যাচে সুযোগও পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু পারফর্ম করতে ব্যর্থ হলে দল থেকে বাদ পড়েন উনাদকট।

কিন্তু জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পর ২০১৯-২০২০ মরসুমে ৬৭টি উইকেট নিয়ে নজির গড়েন তিনি। অভিমন্যু ঈশ্বরণের বাংলাকে(Abhimanyu Easwaran) হারিয়ে সৌরাষ্ট্রকে রঞ্জি ট্রফি এনে দেওয়ায় তাঁর ভূমিকা ছিল অপরিসীম।

কিন্তু তা সত্ত্বেও গত বছরের অস্ট্রেলিয়া সফর, বছরের শুরুতে ঘরের মাঠের ইংল্যান্ড সিরিজ, ভারতীয় দলের ইংল্যান্ড সফরের পর ভারতের ‘বি’ দলের শ্রীলঙ্কা সফরেও উনাদকট জাতীয় দলে সুযোগ না পাওয়ায় অবাক হয়েছেন অনেকেই।

• খলিল আহমেদ (Khaleel Ahmed)
২০১৮-২০১৯ নাগাদ জাতীয় দলের বাঁ-হাতি পেসার হিসেবে উঠে এসেছিল রাজস্থানের প্রতিভাবান বোলার খলিল আহমেদের নাম। বেশ কয়েকটি সুযোগও দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। তবে নজরকাড়া পারফর্ম করতে ব্যর্থ হলে দল থেকে বাদ পড়েন তিনি।

শ্রীলঙ্কা সফরে তাঁকে বাঁ-হাতি পেসার হিসেবে দেখতে পাওয়ার আশা করেছিলেন অনেক অনুরাগীই, তবে সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সের অপর ভিত্তি করে খলিলের জায়গায় দলে নেওয়া হয়েছে চেতন সাকারিয়াকে(Chetan Sakariya)।

• রাহুল ত্রিপাঠী (Rahul Tripathi)
ঘরোয়া ক্রিকেটে মহারাষ্ট্র এবং আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের(KKR) হয়ে খেলেন রাহুল ত্রিপাঠী। ২০২১ আইপিএলের প্রথম পর্বের ৭ ম্যাচে ১৩৫.৫০-এর স্ট্রাইক রেটে ১৮৭ রান করেছেন তিনি। রাহুল কখনও তিন, কখনও চার, কখনও আরও নীচে ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছিলেন,

তা সত্ত্বেও তাঁর নাম এই মরসুমে কলকাতার সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় রয়েছে। কিন্তু শ্রীলঙ্কা সফরের দল দেখে এটা পরিষ্কার, জাতীয় দলে সুযোগ পেতে গেলে আরও ভালো পারফর্ম করতে হবে রাহুলকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here